Logo
শিরোনাম :
পাংশায় সৈয়দ রশিদুন্নবী হিফজুল কোরআন মাদ্রাসা ও এতিমখানার উন্নয়নে মতবিনিময় সভা যমুনার ভাঙন পরিদর্শনে পানি সম্পদ মন্ত্রনালয়ের সিনিয়র সচিব পাংশায় প্রতিপক্ষের দুইদফায় হামলায় পিতা-পুত্র হাসপাতালে বাংলাদেশের ‘অভাবনীয়’ সাফল্যের প্রশংসায় জাতিসংঘ মহাসচিব মানিকগঞ্জে ব্যস্ত সময় পার করছে ৫ শতাধিক ঢাক- ঢোল তৈরির কারিগররা ঘিওরের বড়টিয়া ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রটির ৪টি পদ শূণ্য ।শত শত রোগীরা চিকিৎসা বঞ্চিত দৌলতপুরে ৮ ইউনিয়নে নির্বাচনী হাওয়া বইছে। প্রার্থীদের মনোনয়ন পেতে দৌড়ঝাপ । শনিবার থেকে বিমানবন্দরে পিসিআর ল্যাবে করোনা পরীক্ষা শুরু জাতিসংঘের উচ্চপর্যায়ের আলোচনায় প্রধানমন্ত্রী রোহিঙ্গা প্রত্যাবসনে আন্তর্জাতিক শক্তির নিষ্ক্রিয়তায় মর্মাহত বাংলাদেশ পাংশায় যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের উদ্যোগে মহিলাদের ৭দিন ব্যাপী হস্তশিল্প প্রশিক্ষণের উদ্বোধন
নোটিশ :
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি : আলহাজ্ব এ.এম নাঈমূর রহমান দূর্জয় ,সম্পাদক ও প্রকাশক মো: জালাল উদ্দিন ভিকু,সহ-মফস্বল সম্পাদক মো: জাহিদ হাসান হৃদয় ।

জামালপুর বন্যা পরিস্থিতির অবনতি, তলিয়ে যাচ্ছে ফসলী মাঠ

রিপোর্টার / ১০০ বার
আপডেটের সময় : বুধবার, ১ সেপ্টেম্বর, ২০২১

এম. এ রফিক,জামালপুর প্রতিনিধি:০১ সেপ্টেম্বর-২০২১,বুধবার।
যমুনা নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে, দেখা দিয়েছে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি, তলিয়ে যাচ্ছে ফসলী মাঠ। জামালপুরের ইসলামপুর, দেওয়ানগঞ্জ ও সরিষাবাড়ী তিনটি উপজেলার ১২টি ইউনিয়নের নিম্নাঞ্চল বন্যার পানিতে তলিয়ে গেছে। যমুনা নদীর পানি বাহাদুরাবাদ ঘাট পয়েন্টে বৃদ্ধি পেয়ে বিপদ সীমার ৩০ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রভাবিত হচ্ছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন, বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো)’র নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ আবু সাঈদ এবং পানি মাপক গেজ পাঠক আবদুল মান্নান। যমুনা নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় জেলার ইসলামপুর উপজেলার বেলাগাছা, চিনাডুলী, কুলকান্দি, নোয়ারপাড়া এবং সাপধরী ইউনিয়নের ৭০৫টি পরিবার পানিবন্দি হয়ে পরেছে। এ ছাড়া একই উপজেলার চিনাডুলী ইউনিয়নের ৮টি পরিবার এবং বেলগাছা ইউনিয়নের ৬টি পরিবার নদী ভাঙনের শিকার হয়েছে। অপরদিকে দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার চিকাজানি ইউনিয়নে ৪১টি পরিবার নদী ভাঙনের শিকার হয়েছেন। ইসলামপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা গোলাম মোর্শেদ বলেন, এই উপজেলায় যমুনা তীরবর্তী পাঁচটি ইউনিয়নের ৭০৫টি পরিবার বন্যায় আক্রান্ত আর ১৪টি পরিবার নদী ভাঙনের শিকার হয়েছেন বলে জানিয়েছেন। এছাড়া জামালপুর সদরের মেষ্টা ও কেন্দুয়া ইউনিয়নের কয়েক একর জমির ফসল তলিয়ে গেছে। জেলার ত্রাণ ও পূনর্বাসন কর্মকর্তা মো.নায়েব আলী জানান,বন্যার্তদের জন্য ১৩ মেট্রিক টন চাউল ও সাত লাখ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

ক্যাপশনঃ জামালপুর বন্যা পরিস্থিতির অবনতি ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ

Theme Created By ThemesDealer.Com