Logo
শিরোনাম :
আখেরী মোনাজাতে লাখো মুসল্লির অংশগ্রহণে ৩ দিনের ইজতেমা শেষ শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বিশ্ববিদ্যালয়ে নবনিযুক্ত উপাচার্যের যোগদান নীলফামারীতে র‌্যাবের অভিযানে ৫ জন আটক, বোমা তৈরীর সরঞ্জাম উদ্ধার রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের মাধ্যমে বাংলাদেশ স্বাধীন করেছি, এই অর্জনে মূল ভূমিকা রেখেছে ছাত্রলীগ -কৃষিমন্ত্রী দৈনিক জাগো প্রতিদিনের সম্পাদক শহীদুল্লাহ মুহাম্মদ শাহ নুরের মায়ের ইন্তেকাল রূপগঞ্জে মন্ত্রী গাজীর নির্দেশনায় আওয়ামীলীগ নেতা আনছর আলীর শীতবস্ত্র বিতরণ। সৈয়দপুরে ‘আটকেপড়া পাকিস্তানি’ নাম পরিবর্তনের দাবীতে উর্দূভাষীদের সংগঠন এসপিজিআরসি’র ৪৪ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন পাংশায় সাহিত্য উন্নয়ন পরিষদের সভা অনুষ্ঠিত জনদের সঙ্গে দেখা না করেই ফিরতে হলো হরিপুরের সীমান্তে মিলন- মেলা থেকে  টাঙ্গাইল জেলা পরিবেশক মালিক সমিতির ত্রি-বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত
নোটিশ :
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি : আলহাজ্ব এ.এম নাঈমূর রহমান দূর্জয় ,সম্পাদক ও প্রকাশক মো: জালাল উদ্দিন ভিকু,সহ-মফস্বল সম্পাদক মো: জাহিদ হাসান হৃদয় ।

সাত থেকে দুই বছর ধরে বেতন পাচ্ছেন না শিক্ষক কর্মচারী জেলা শিক্ষা কর্মকর্তার নির্দেশ অমান্য

রিপোর্টার / ৩৪ বার
আপডেটের সময় : সোমবার, ২২ নভেম্বর, ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক:২২ নভেম্বর-২০২১,সোমবার।

মানিকগঞ্জের দৌলতপুর উপজেলা আমতলী এফএস উচ্চ বিদ্যালয়ের নৈশ প্রহরী কামরুল হাসান সাত বছর ধরে বেতন পাচ্ছেন না। তাঁর অভিযোগ আত্বসাতের উদ্দেশেই প্রধান শিক্ষক বকেয়া বেতনের টাকা পরিশোধ করছেন না। একই ধরণের অভিযোগ করেছেন ওই স্কুলের আরও দুজন সহকারী শিক্ষক। তাঁদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে তদন্ত শেষে জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা বকেয়া বেতন পরিশোধের নির্দেশ দিলেও প্রধান শিক্ষক তা পালন করেননি। এ অবস্থায় ভুক্তভুগিরা চরম অর্থনৈতিক সংকটে পড়েছেন।
জানা গেছে এমপিও ভুক্ত মাধ্যমিক পর্যায়ের এই বেসরকারী স্কুলটি প্রতিষ্টিত হয় ১৯৭২ সালে। বর্তমানে প্রায় নয়’শ শিক্ষার্থী রয়েছে। ১৬জন শিক্ষকসহ রয়েছে তিনজন কর্মচারী।
এদের মধ্যে নৈশ প্রহরী কামরুল হাসান প্রায় সাত বছর ধরে স্কুলের অংশের বেতন পাচ্ছেন না। বেতন,ভাতাসহ গত মাস পর্যন্ত তার পাওনা রয়েছেন দুই লাখ টাকার বেশি। সহকারী শিক্ষক জনাব আলী প্রায় ২৬ মাস ধরে স্কুল অংশের বেতন পাচ্ছেন না। গত মাস পর্যন্ত তার পাওনা হয়েছে প্রায় দেড় লাখ টাকা। অপর সহকারী শিক্ষক কাজী সানোয়ার হোসেনকেও গত ২০১৯ সালের আগস্ট মাস থেকে স্কুল অংশের বেতনসহ অন্যান্য পাওনাদি পরিশোধ করা হয়নি।
এ ব্যাপারে তাদের সাথে কথা বলে জানা গেছে , মৌখিক ভাবে অনুরোধ করার পরও প্রধান শিক্ষক কোন ব্যবস্থা নেননি। বাধ্য হয়ে তাঁরা পৃথক ভাবে গত বছরের মার্চ মাসে জেলা শিক্ষা কর্মকর্তার কাছে লিখিত ভাবে অভিযোগ করেন। দৌলতপুর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার মাধ্যমে অভিযোগের তদন্ত করান জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা। তদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার পর এ বছরের ২৩ মার্চ জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা রেবেকা জাহান বকেয়া বেতন পরিশোধের জন্য প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ মজিবুর রহমানকে নির্দেশ দেন। কিন্তু প্রায় আট মাস পার হলেও সে নির্দেশ না মেনে বেতন ভাতা পরিশোধ করা হয়নি।
নৈশ প্রহরী কামরুল হাসান অভিযোগ করে বলেন, টাকা আত্বসাতের উদ্দেশ্যেই প্রধান শিক্ষক বকেয়া বেতন দিচ্ছেন না। সহকারী শিক্ষক জনাব আলী বলেন ক্যান্সারের রোগে আক্রান্ত হয়ে তাাঁর অপারেশন করাতে হয়েছে। বিপুল অংকের টাকা খরচ হচ্ছে। বেতন না পেয়ে চিকিৎসা খরচ চালানো কস্টকর হয়ে পড়েছে। অপর সহকারী শিক্ষক বলেন আমতলী একতা সংঘ নামের একটি কাবে সভাপতি প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ মজিবুর রহমান। তিনি কাবের জন্য এক হাজার টাকা চাঁদা চেয়েছিলেন। না দেওয়াতে ক্ষিপ্ত হয়ে বেতন বন্ধ করে দিয়েছেন। একই অভিযোগ করেন অপর দুজন।
জেলা শিক্ষা কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। তবে দৌলতপুর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ইবদাদুর রহমান তালুকদার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি মুঠোফোনে জানান স্কুল অংশের পাওনা পরিশোধের জন্য প্রধান শিক্ষককে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। তবে এখনও কেন পরিশোধ করা হযনি সে বিষয়ে তিনি কিছু বলতে পারেননি।
প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ মজিবুর রহমান স্কুল অংশের বেতন বকেয়া থাকার কথা স্বীকার করেন। তিনি বলেন শিক্ষার্থীদের বেতন বকেয়া থাকায় শিক্ষকদের বেতন দেয়া সম্ভব হয়নি। এক প্রশ্নের উত্তরে কোন কোন শিক্ষককে বেতন দেয়া হয়েছে বলে স্বীকার করেন। তবে অভিযোগকারী শিক্ষক, কর্মচারীরা আত্বসাতের যে অভিযোগ করেছেন তা অস্বীকার করে বলেন সব মিথ্যা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ

Theme Created By ThemesDealer.Com