Logo
শিরোনাম :
পাংশায় প্রতিপক্ষের দুইদফায় হামলায় পিতা-পুত্র হাসপাতালে বাংলাদেশের ‘অভাবনীয়’ সাফল্যের প্রশংসায় জাতিসংঘ মহাসচিব মানিকগঞ্জে ব্যস্ত সময় পার করছে ৫ শতাধিক ঢাক- ঢোল তৈরির কারিগররা ঘিওরের বড়টিয়া ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রটির ৪টি পদ শূণ্য ।শত শত রোগীরা চিকিৎসা বঞ্চিত দৌলতপুরে ৮ ইউনিয়নে নির্বাচনী হাওয়া বইছে। প্রার্থীদের মনোনয়ন পেতে দৌড়ঝাপ । শনিবার থেকে বিমানবন্দরে পিসিআর ল্যাবে করোনা পরীক্ষা শুরু জাতিসংঘের উচ্চপর্যায়ের আলোচনায় প্রধানমন্ত্রী রোহিঙ্গা প্রত্যাবসনে আন্তর্জাতিক শক্তির নিষ্ক্রিয়তায় মর্মাহত বাংলাদেশ পাংশায় যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের উদ্যোগে মহিলাদের ৭দিন ব্যাপী হস্তশিল্প প্রশিক্ষণের উদ্বোধন পাংশায় হাসপাতাল ব্যবস্থাপনা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত ২১০টি অনিয়মিত পত্রিকা বাতিলে তালিকা করা হয়েছে: তথ্যমন্ত্রী
নোটিশ :
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি : আলহাজ্ব এ.এম নাঈমূর রহমান দূর্জয় ,সম্পাদক ও প্রকাশক মো: জালাল উদ্দিন ভিকু,সহ-মফস্বল সম্পাদক মো: জাহিদ হাসান হৃদয় ।

সৈয়দপুরে ২০ হাজার টাকায় নবজাতক বিক্রি ঠেকালো পুলিশ সদস্য আব্দুর রহিম

রিপোর্টার / ৪৮ বার
আপডেটের সময় : মঙ্গলবার, ৩ আগস্ট, ২০২১

শাহজাহান আলী মনন, নীলফামারী প্রতিনিধিঃ০৩ আগস্ট-২০২১,মঙ্গলবার।
নীলফামারীর সৈয়দপুরে দূর সম্পর্কিত ফুপাতো বোনের কাছে ২০ হাজার টাকায় নব ভুমিষ্ট ছেলে সন্তানকে বিক্রির অভিযোগ উঠেছে এক দম্পতির বিরুদ্ধে। পরে পুলিশ সেই নবজাতককে উদ্ধার করে মায়ের কোলে ফিরিয়ে দেয়। সৈয়দপুর ১০০ শয্যা হাসপাতালে মঙ্গলবার সকালে এ ঘটনা ঘটে।
জানা যায়, শহরের নিচু কলোনি মহল্লার মোঃ নাদিমের স্ত্রী জোসনা বেগম (৩১) মঙ্গলবার সকালে সৈয়দপুর ১০০ শয্যা হাসপাতালে একটি ছেলে সন্তানের জন্ম দেন। পরে ২০ হাজার টাকায় নবজাতক কে বিক্রি করে দেন একই এলাকার লিমা আক্তারের কাছে।
হাসপাতালের মূল গেটে নবজাতকের বাবার সাথে ক্রেতা লিমা আক্তারের চুক্তিপত্র সম্পাদন হতে দেখে লোকজন। চুক্তিপত্রে স্বাক্ষর শেষে মহিলাটি নবজাতকের বাবার হাতে এক ব্যান্ডেল টাকা তুলে দেন। এতে হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা লোকজনের মাধ্যমে বিষয়টি ছড়িয়ে পড়ে।
পরে এ ঘটনাটি চাউর হয়ে পড়লে সৈয়দপুর সদর পুলিশ ফাঁড়ির কর্মকর্তা আব্দুর রহিম দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে ক্রেতা লিমা আকতারের কাছ থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করেন। লিমা আকতার সৈয়দপুর শহরের নিচু কলোনি মহল্লার খায়রুল ইসলামের স্ত্রী।
নবজাতকের মা জোসনা বেগম জানান, জামিলা খাতুন আমার দূর সম্পর্কীয় ফুপাতো বোন। তাঁর কোনো ছেলে সন্তান না থাকায় তাকে স্বেচ্ছায় দিয়েছি। তবে আমার চিকিৎসার খরচ বাবদ তিনি আমাদের ২০ হাজার টাকা দিয়েছেন।
খবরটি মূহুর্তে শহরজুড়ে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ

Theme Created By ThemesDealer.Com