Logo
শিরোনাম :
নাগরপুরে নির্বাচনী সংহিতায় নিহত ১ গুলিবিদ্ধসহ আহত ৪ জন সৈয়দপুরে বাঁশঝাড় থেকে ২ সন্তানের জননীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার, স্বামী-শ্বাশুড়ী আটক ঘিওরে ধলেশ্বরী ক্যাফে এন্ড রেস্টুরেন্টের’ উদ্ধোধন আগামীতে বিএনপি’র মত নির্বাচনে না যাওয়ার চিন্তা ভাবনা করছে জাতীয় পার্টি- সৈয়দপুরে মজিবুল হক চুন্নু টাঙ্গাইলে পাঁচ হোটেল মালিককে ১৮ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত মানিকগঞ্জে নানা আয়োজনে নবীন আইনজীবীদের বরন  টাঙ্গাইলে পোড়াবাড়ী ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী মিজানের মনোনয়নপত্র জমা ঘিওরে আইন শৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভা অনুষ্ঠিত  দৌলতপুরে শহীদ বুদ্ধিজীবি দিবস ও  মহান বিজয় উদযাপন উপলক্ষে প্রস্তুতি মুলক সভা অনুষ্ঠিত খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসা ও মুক্তির দাবীতে সৈয়দপুরে জেলা বিএনপি’র বিক্ষোভ ও স্মারকলিপি পেশ
নোটিশ :
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি : আলহাজ্ব এ.এম নাঈমূর রহমান দূর্জয় ,সম্পাদক ও প্রকাশক মো: জালাল উদ্দিন ভিকু,সহ-মফস্বল সম্পাদক মো: জাহিদ হাসান হৃদয় ।

মানিকগঞ্জে পেঁপে চাষে ভাগ্য বদলে যাচ্ছে কৃষকদের

রিপোর্টার / ৪৮ বার
আপডেটের সময় : মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর, ২০২১

রামপ্রসাদ সরকার দীপু স্টাফ রিপোর্টার ঃ২৬ অক্টোবর-২০২১,মঙ্গলবার।
মানিকগঞ্জের ৭টি উপজেলায় পেঁপের ব্যাপক ফলন হয়েছে। জেলার ঘিওর, দৌলতপুর, শিবালয়, হরিরামপুর, সিংগাইর ও সাটুরিয়াতে গ্রামের পর গ্রাম শুধু পেঁপে গাছ। পেঁপে চাষ করে এই অঞ্চলের কৃষকদের ভাগ্যের চাকা খুলে গেছে। ঘিওর উপজেলার চৌবাড়িয়া গ্রামের কৃষক জসিম উদ্দি জোতি জমি মাত্র দুই বিঘা! সেই জমিতে সারি সারি গাছ। তিন থেকে চার ফুট উচ্চতার গাছে দেড় থেকে চার কেজি ওজনের পেঁপে। অধিক ফলনশীল ও আকর্ষণীয় রঙের দেশি জাতের পেঁপের কথা। যা চাষ করে চমক দেখিয়েছেন। এছাড়া উপজেলার বালিয়াখোড়া ইউনিয়নের চৌবাড়িয়া গ্রামে গিয়ে দেখা যায়, কৃষক জসিম উদ্দিন তার ছোট ভাই মতিয়ারকে সঙ্গে নিয়ে পেঁপে বাগানে কাজ করছেন। দুই বিঘা জমিতে গাছে অগণিত পেঁপে ঝুলছে। চারা লাগানোর ৩ থেকে ৪ মাসের মাথায় গাছে ফল আসা শুরু করে। দেশীয় জাতের পেঁপে গাছটি উচ্চতায় সর্বোচ্চ ৫-৬ ফুট হয়ে থাকে। ওজনে পেঁপেগুলো দুই থেকে চার কেজি হয়। সপ্তাহে একবার মাঠ থেকে এক থেকে ২ হাজার কেজি পেঁপে তুলে তিনি বিক্রি করেন স্থানীয় বিভিন্ন হাট বাজারে। মাঠ থেকে বিক্রি করেছেন প্রতি কেজি পেঁপে ২০ থেকে ২৫ টাকা দরে। এ পর্যন্ত বিক্রি হয়েছে লাধিক টাকার মতো। অবশিষ্ট যে পরিমাণ পেঁপে এখন গাছে রয়েছে এবং নতুন করে যে ফল আসছে তা প্রায় ৩ ল টাকার অধিক ম‚ল্যে বিক্রি করত পারবেন বলে জানিয়েছেন কৃষক জোতি ও মতি।

দৌলতপুর উপজেলার বাচামারা ইউনিয়নের কৃষক আবুল ( ৪৫) জানান, এ সময়ে বাজারে সবজির অনেকটাই সংকট থাকে। তাই স্থানীয় বাজারে পেঁপের চাহিদাও ভালো। এমন উৎপাদন অব্যাহত থাকলে প্রায় চার লাখ টাকার উপরে পেঁপে বিক্রি করতে পারবেন বলে আশাবাদী তিনি। তিনি আরোও জানান, ম‚লা, লাল শাক, ডাটা শাকের পাশাপাশি সাথি ফসল হিসেবে পেঁপে চাষ করেছি। অন্যান্য ফসলের তুলনায় লাভ বেশি হওয়ায় আমি পেঁপে চাষের দিকে ঝুঁকেছি। প্রথমবার চারা লাগানোসহ বিভিন্ন পরিচর্যায় দুই বিঘা জমিতে রাসায়নিক সার, জৈব সার, খৈল শ্রমিক মিলে খরচ হয়েছে ২০ হাজার টাকার মতো। শিবালয় উপজেলার আমডালা গ্রামের কৃষক আয়নাল জানান, গতবার ২ বিঘা জমিতে পেঁপে চাষ করে প্রায় ৪৫ হাজার টাকা লাভ করেছেন । কাজেই চলতি বছরে তিনি দুই বিঘা জমিতে পেঁপে চাষ করেছেন।

মানিকগঞ্জ জেলা কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক (খামারবাড়ি) মোঃ শাহজাহান আলী বিশ্বাস জানান, মানিকগঞ্জের ৭টি উপজেলাতে পেঁপে চাষিদের কৃষি বিভাগ থেকে বিভিন্ন ধরনের পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। একবার জমিতে চারা লাগালে ৩ বছর পর্যন্ত ফলন পাওয়া যায়। প্রথম বছরের পর পর দুই বছর তে পরিচর্যার খরচ খুবই কম লাগে। কোন প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হলে এবারও কৃষকরা পেঁপে চাষে লাভবান হবেন বলে আশা করছি। কৃষকরা কোন সমস্যা নিয়ে না আসলে আমরা কিভাবে অবগত হবো। তবে এ ব্যাপারে উপজেলা পর্যায়ে কর্মকর্তাদের বিষয়টি গুরুত্বের সাথে দেখতে বলা হয়েছে।

 

 

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ

Theme Created By ThemesDealer.Com